কামারুজ্জামানের মৃত্যু পরোয়ানায় সই

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ডাদেশ পাওয়া জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের মৃত্যু পরোয়ানায় আজ বৃহস্পতিবার সই করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২-। এরপর এই মৃত্যু পরোয়ানা কারাগারে পাঠানো হবে।
কামারুজ্জামানের সাজা বহাল রেখে আপিল বিভাগের দেওয়া পূর্ণাঙ্গ রায় গতকাল বুধবার প্রকাশিত হয়। সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার সৈয়দ আমিনুল ইসলাম বলেন, গতকাল রাত পৌনে আটটার দিকে পূর্ণাঙ্গ রায়ের অনুলিপি আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।
গত বছরের ৩ নভেম্বর বর্তমান প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার (তখন আপিল বিভাগের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি) নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির বেঞ্চ সংখ্যাগরিষ্ঠ মতে সংক্ষিপ্ত রায় ঘোষণা করেছিলেন। এই বেঞ্চের অন্য সদস্যরা হলেন বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী। তাঁদের মধ্যে বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্হাব মিঞা দ্বিমত পোষণ করেছেন।
রায় কার্যকর করা প্রসঙ্গে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, রায় পুনর্বিবেচনার আবেদনের জন্য রাষ্ট্রকে ১৫ দিন অপেক্ষা করতে হবে, এমনটা আপিল বিভাগের রায়ে বলা নেই। তবে পুনর্বিবেচনার আবেদন করলে দণ্ডাদেশের কার্যকারিতা স্থগিত হয়ে যাবে। আর তা না হলে ট্রাইব্যুনাল মৃত্যু পরোয়ানা জারি করলে রায় কার্যকরের প্রক্রিয়া শুরু হবে।

তবে কামারুজ্জামানের আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, রায়ের অনুলিপি পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে পুনর্বিবেচনার আবেদন করতে হবে। ওই আবেদনের চূড়ান্ত নিষ্পত্তির পর মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকলে তখন তা কার্যকর করার প্রশ্ন আসবে। তার পরও আসামি প্রাণভিক্ষার সুযোগ পাবেন।

লেটেস্টবিডিনিউজ

Shortlink:

Q&A

You must be logged in to post a comment Login