ছোট্ট সুন্দর জোনাকি পোকা সম্পর্কে চমকপ্রদ যত তথ্য

পৃথিবীতে অনেক সুন্দর সুন্দর প্রাণীর বসবাস। সব প্রাণীই কোনো না কোনোভাবে অনেক উপকারী হয়ে থাকে। জোনাকি এমন সুন্দর ছোট্ট একটি প্রাণী যাকে দেখে মনে হতে পারে এটি কোনো উপকারী নয়, কিন্তু এই ছোট্ট প্রাণীটিও মানুষের অনেক উপকার করে থাকে। জোনাকি পোকা এত আশ্চর্যজনক একটি প্রাণী যে এর সম্পর্কে এমন অনেক তথ্য আছে যা আমরা কেউই হয়তো জানি না। আসুন জেনে নিই সেই বিচিত্র তথ্যগুলো।

১. জোনাকিকে লাইটিং বাগ বলা হলেও এটি মাছি বা বাগ কিছুই না :

জোনাকিকে লাইটিং বাগ বলা হয়ে থাকে কিন্তু আসলে এটি কোনো বাগ প্রজাতির প্রাণী নয়, জোনাকি শুধুমাত্র ছোট্ট একটি পোকা। অন্যান্য পোকার মতই এদের শক্ত দুটি পাখা রয়েছে যেগুলোকে ইলিট্রা বলে। এগুলো পিঠের উপর সোজাসুজিভাবে থাকে। দেহের ভারসাম্য রক্ষায় এবং উড়ার কাজে এই পাখাগুলোকে ব্যবহার করে থাকে।

২. জোনাকি পৃথিবীর সর্বাপেক্ষা উৎকৃষ্ট আলো প্রদানকারী পোকা :

আপনি যদি একটি আলোর জ্বলছে এমন বাল্বে হাত দেন তাহলে আপনার হাত পুড়ে যাওয়ার ভয় থাকবে। এছাড়া বৈদ্যুতিক এসব বাল্ব ৯০ শতাংশ এনার্জি খরচ করে মাত্র ১০ শতাংশ আলো তৈরি করতে পারে। কিন্তু জোনাকি পোকা শরীরের যোগ্যতা অনুসারে এর চেয়েও বেশি আলো উৎপাদন করতে পারে। এরা এক ধরনের দক্ষ রাসায়নিক বিক্রিয়ায় এই আলো উৎপাদন করে থাকে এবং এর জন্য কোনো এনার্জি নষ্ট এরা আলো জ্বালানোর সময়ে শরীরকে অনেক উত্তপ্ত করে, মাঝে মাঝে নিজের শরীরটিকেও ভস্মীভূত করে ফেলে। এনার্জির ১০০ শতাংশই ব্যবহৃত হয় এই আলো উৎপাদনে।

৩. জোনাকিরা একে অপরের সাথে আলোর সংকেতে কথা বলে :

গ্রীষ্মকালে শুধুমাত্র আমাদের বিনোদন যোগাতে এরা আলো জ্বালিয়ে ঘুরে বেড়ায় না। আপনি যদি খেয়াল করে দেখেন তাহলে বুঝতে পারবেন যে এই সময়ে পুরুষ জোনাকি মেয়ে জোনাকিদের তার আলোর সংকেত দিয়ে তার মনের কথাগুলো জানায়, আগ্রহী নারী জোনাকিটি আলোর সংকেতে তার ইতিবাচক উত্তর জানিয়ে দেয়। এরপরে তারা কম গাছপালাপূর্ণ কোনো জায়গায় মিলিত হয়।

৪. জোনাকিরা সবসময় আলো উৎপাদন করে না :

জোনাকিদের প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বাহিরে ঘুরতে দেখা যায় না তাই স্বাভাবিকভাবেই জানা যায় না এরা কখন কখন আলো জ্বালে। এদের জীবনটাই শুরু হয় ডিমের ভেতর থেকে। বাস্তবিক অর্থে সব ডিম এবং শুককীটই আলো জ্বালানোর জন্য প্রস্তুত থাকে। পরবর্তীতে প্রাপ্ত বয়স্ক হলে তারা তাদের আলো জ্বালিয়ে সংকেত প্রদান করে থাকে। তবে কোনো জোনাকি যদি কোনো কারণে বিরক্ত থাকে তখন সে আলো জ্বালাতে পারে না।

৫. সব প্রাপ্ত বয়স্ক জোনাকিই আলো জ্বালাতে পারে না :

জোনাকি পোকাটি মূলত আলোর সংকেতের জন্যই পরিচিত কিন্তু সব প্রাপ্তবয়স্ক জোনাকিই আলো জ্বালাতে পারে না। এমন কিছু জোনাকি আছে বিশেষ করে উত্তর আমেরিকার পশ্চিমাঞ্চলে বসবাস করা জোনাকিরা তাদের যোগাযোগের জন্য আলো জ্বালায় না।

৬. জোনাকির শুককীট খাওয়ার জন্য শামুকের উপর নির্ভরশীল :

জোনাকির শুককীটগুলো মাংসাসী শিকারি হয়ে থাকে এবং তাদের প্রিয় খাবার হল এসকারগোট নামে এক ধরনের শামুক। বেশিরভাগ জোনাকি প্রজাতি স্তিমিত স্থলজ স্থানে বসবাস করে যেখানে তারা শামুক এবং মাটি কৃমি খেয়ে থাকে। কিন্তু অনেক প্রজাতিই আবার পানির নিচে শ্বাস নিতে পারে যেখানে তারা পানির নিচের শামুক খেয়ে থাকে। কিছু জোনাকি পোকা গাছের শামুক খেয়ে থাকে এবং গাছেই বসবাস করে।

৭. কিছু জোনাকি রাক্ষস প্রজাতির হয়ে থাকে :

প্রাপ্ত বয়স্ক জোনাকি সম্পর্কে আমাদের তেমন কোনো ধারণাই নাই। অনেক জোনাকি ক্ষুদ্র খাবার খেয়েই বেঁচে থাকে। কিন্তু কোনোগুলো অনেক বেশি রাক্ষুসে ধরনের হয়ে থাকে। এরা সারাদিন শুধু খেতেই থাকে।

Shortlink:

Q&A

You must be logged in to post a comment Login