পাকিস্তানের টিভিতে সেক্স শো!

image_173055.pak-tvটিভির পর্দায় ধরা পড়ল অন্য পাকিস্তানের গল্প। মৌলবাদী চোখরাঙানি ঝেড়ে ফেলে যে পাকিস্তান তার চাওয়া-পাওয়া, ইচ্ছে-অনিচ্ছের কথা স্পষ্ট ভাবে তুলে ধরতে পারে। সম্প্রতি পাকিস্তানের একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠানের বিষয় ছিল যৌনতা। সব লজ্জা ভুলে সেই live phone in অনুষ্ঠানের বেশিরভাগ কলার ছিলেন পাকিস্তানের প্রত্যন্ত এলাকার গৃহবধূরা।
এইচ টিভির সাপ্তাহিক অনুষ্ঠান ক্লিনিক অনলাইনে গত সপ্তাহে যৌনতা, যৌন অসুখ এবং যৌন অক্ষমতা নিয়ে আলোচনা হয়। মুসলিম প্রধান পাকিস্তানে, বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলে একাধিক স্ত্রী অনেকেরই থাকে। সেই ক্ষেত্রে যৌন সমস্যা অনেক সময়ই বড় আকার নেয়। সে কথা মাথায় রেখেই এ ধরনের অনুষ্ঠানের কথা ভাবেন বলে জানিয়েছেন উদ্যোক্তারা। তবে সাধারণ মানুষের মনে এর কী প্রতিক্রিয়া হবে, তা নিয়ে প্রথমে একটা আশঙ্কা অবশ্যই ছিল। অনুষ্ঠান প্রচারের সময় নিয়েও দ্বিধায় ছিলেন আয়োজকরা। গভীর রাতে এ ধরনের অনুষ্ঠান দেখালে ভালো হয় বলে মত প্রকাশ করেন অনেকে। কিন্তু সবদিক ভেবে দুপুরে এই শো প্রচারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যাতে স্বামীদের কর্মস্থলে থাকার সুযোগে গৃহবধূরা অবাধে ফোন করতে পারেন।
অনুষ্ঠানটি শুরুর কিছু পর থেকেই অবশ্য ফোনের প্রায় ঢেউ আছড়ে পড়ে। প্রধানত গ্রামীণ এলাকা থেকে অজস্র ফোন আসতে থাকে। পাকিস্তানে এমনিতেই নারী শিক্ষার হার বেশ কম। তার উপর গ্রামের দিকে যৌন সচেতনতা প্রায় অলীক স্বপ্ন। সেখানে যেভাবে গৃহবধুরা ফোন করতে থাকেন এবং নিজেদের যৌন সমস্যার কথা অবাধে বলতে থাকেন, তাতে চমত্‍কৃত উদ্যোক্তারা।
কিছু কিছু ক্ষেত্রে অবশ্য সাবধানতা অবলম্বন করেছেন অনুষ্ঠানটির আয়োজকরা। যেমন, কোনওভাবেই যাতে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ককে প্রশ্রয় না দেওয়া হয়, সেদিকে কড়া নজর রাখা হয়েছে। এক মহিলা জানান য়ে তাঁর স্বামী তাঁকে ছেড়ে দ্বিতীয় স্ত্রীর কাছে চলে গিয়েছেন। তিনি তাঁর যৌন তৃপ্তির জন্য কী করবেন, তা জানতে চান ওই মহিলা। তাঁকে অনুষ্ঠানে উপস্থিত চিকিত্‍সক ঈশ্বরে মন দিতে উপদেশ দেন। তবু পাকিস্তানের বুকে এ ধরনের অনুষ্ঠান নিঃসন্দেহে বৈপ্লবিক পদক্ষেপ।

Shortlink:

Q&A

You must be logged in to post a comment Login