প্রথম আলো সম্পাদকের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

prothom-alo‘ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার’ অভিযোগের একটি মামলায় তিন দফা তলবে হাজির না হওয়ায় প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান ও এক আলোকচিত্রীকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানা জারির নির্দেশ দিয়েছে ঝালকাঠির একটি আদালত।

জেলার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. আরিফুজ্জামান বুধবার এ আদেশ দেন।

মতিউর রহমানের সঙ্গে এ মামলার অন্য আসামি হলেন আলোকচিত্রী মজিদ খান।

আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি মামলার পরবর্তী দিন রেখেছে আদালত। তার মধ্যে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার অগ্রগতি প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে বলে অতিরিক্ত পিপি এম আলম খান কামাল জানিয়েছেন।

মো. গণি আমিন বাকলাই নামের এক আইনজীবী গত ৯ অক্টোবর কয়েকটি প্রতিবেদনে ‘ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার’ অভিযোগে মতিউর রহমান ও মজিদ খানের বিরুদ্ধে এ মামলা করেন।

মামলা আমলে নিয়ে আসামিদের ১৬ নভেম্বর আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেন বিচারক।

ওই দিন হাজির না হওয়ায় পরে দুই দফায় ১১ ডিসেম্বর ও ১৮ জানুয়ারি হাজির হতে বললেও আসামিরা আদালতে যাননি বলে অতিরিক্ত পিপি কামাল জানিয়েছেন।

তিন দফা তলবেও আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় বিচারক বুধবার আসামিদের গ্রেপ্তারে পরোয়ানা জারির নির্দেশ দেন বলে সরকারি এই কৌসুলি জানান।

প্রথম আলো সম্পাদকের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ২৯৫ ও ২৯৮ ধারায় মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

দণ্ডবিধির ২৯৫ (ক) ধারায় অন্যের ধর্ম বিশ্বাসের অমাননা ও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিতে বিদ্বেষমূলক কোনো কাজ করলে দুই বছর পর্যন্ত জেল ও জরিমানার বিধান রয়েছে।

আর দণ্ডবিধির ২৯৮ ধারায় বলা হয়েছে, ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিতে বিদ্বেষমূলক শব্দ উচ্চারণ করলে এক বছর পর্যন্ত জেল ও জরিমানা হতে পারে।

Shortlink:

Q&A

You must be logged in to post a comment Login