বগুড়ার রোশনাই

school-1গত বছরের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষার (জেএসসি) ফলকে পেছনে ফেলে এবার আরো এক ধাপ এগিয়েছে বগুড়ার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। গতবারের ফলের মতো এবারও বগুড়া ছড়াল রোশনাই। গত বছর রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে সেরা ২০ তালিকার মধ্যে স্থান পেয়েছিল বগুড়ার আটটি বিদ্যালয়, আর এবার প্রথম থেকে পঞ্চম পর্যন্ত সব স্থানসহ ৯ মেধাবীকে পেল বগুড়া।

সেরা ২০ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রথম স্থান (শীর্ষ) দখল করেছে বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ। টানা দুই বছর শিক্ষা বোর্ডে শীর্ষস্থান ধরে রাখা এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবারও জেলার মধ্যে হয়েছে প্রথম। এ ছাড়া বোর্ডে ও জেলায় দ্বিতীয় হয়েছে বগুড়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় (ভিএম স্কুল)। গত বছর এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বোর্ড ও জেলায় ছিল তৃতীয় অবস্থানে। গত বছর বোর্ড ও জেলায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা বগুড়া জিলা স্কুল এবার একধাপ নেমে হয়েছে তৃতীয়। গত বছরের মতো এবারও বোর্ড ও জেলায় চতুর্থ স্থান দখল করেছে বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ। একই ভাবে পঞ্চম স্থান ধরে রেখেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ। এবারই প্রথম বোর্ডে নবম স্থান দখল করেছে মিলেনিয়াম কলাস্টিক স্কুল। গত বছর ১৬তম স্থানে থাকা পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (আরডিএ) ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবার হয়েছে ১২তম। এ ছাড়া বোর্ডের সেরা ২০-এর মধ্যে বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল হয়েছে ১৭তম এবং বগুড়া পুলিশ লাইনস স্কুল অ্যান্ড কলেজ দখল করেছে ২০তম স্থান।

ফল বিশ্লেষণে দেখা গেছে, রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে টানা দুই বছর ধরে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে বগুড়া ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ। এবার এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে ২৯৩ জন পরীক্ষা দিয়ে শত ভাগ পাস করেছে এবং জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৮৮ জন।

গত বছরের চেয়ে একধাপ ওপরে এসে এবার দ্বিতীয় স্থান দখল করেছে বগুড়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় (ভিএম স্কুল)। গত বছর এই প্রতিষ্ঠানের অবস্থান ছিল তৃতীয়। এবার জেএসসি পরীক্ষায় ভিএম স্কুল থেকে ২৬৪ জন পরীক্ষায় অংশ নেয়। শত ভাগ পাস করা এই প্রতিষ্ঠান থেকে এবার জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৬৮ জন।

গত বছর দ্বিতীয় স্থানে থাকলেও এবার একধাপ নেমে বগুড়া জিলা স্কুলের অবস্থান শিক্ষা বোর্ডে তৃতীয়। এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে এবার ২৭৭ জন পরীক্ষা দিয়ে শত ভাগ পাস করেছে এবং জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৬৮ জন।

টানা দুইবার শিক্ষা বোর্ডে চতুর্থ স্থানে থাকা বগুড়া বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এবার ৩৩৪ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছে ৩৩৩ জন। সেই সঙ্গে জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩১২ জন শিক্ষার্থী। গত বছরের মতো এবারও পঞ্চম স্থানে থাকা এপিবিএন পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ২৩৬ জন পরীক্ষা দিয়ে শত ভাগ পাস করেছে। এবার এই প্রতিষ্ঠান থেকে জিপিএ ৫ পেয়েছে ২২৪ জন শিক্ষার্থী।

শিক্ষা বোর্ডে এবারই প্রথম নবম স্থান দখল করা মিলেনিয়াম কলাস্টিক স্কুল থেকে ৫০ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে সবাই জিপিএ ৫ পেয়েছে। বোর্ডে ১২তম স্থানে থাকা বগুড়া আরডিএ ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের ২২০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৯১ জন। বোর্ডে ১৭তম স্থান দখল করা বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুলের ৪০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৭ জন জিপিএ ৫ পেয়েছে এবং শিক্ষা বোর্ডের সেরা ২০-এর মধ্যে ২০তম স্থানে থাকা বগুড়া পুলিশ লাইনস স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ৩২৬ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ২৩০ জন জিপিএ ৫ পেয়েছে।

Shortlink:

Q&A

You must be logged in to post a comment Login